রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ, স্বাস্থ্যঝুঁকিতে বাংলাদেশ

রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ, স্বাস্থ্যঝুঁকিতে বাংলাদেশ

যুদ্ধ কিংবা জাতিগত দাঙ্গা একটি মানবিক বিপর্যয়। দিনশেষে তাতে মানুষই মরে। গত কিছুদিন ধরে মায়ানমারে রোহিংগা সম্প্রদায়ের উপর নিরাপত্তাবাহীনির বর্বরতায়  প্রচুর মানুষ পার্শ্ববর্তী দেশ হিসেবে বাংলাদেশে আসছে। তাই সমস্যাটি এখন শুধু মায়ানমারে সীমাবদ্ধ নয়, বাংলাদেশ এতে অনিচ্ছাকৃতভাবে হলেও জড়িয়ে গেছে। মানবিক দিক বিবেচনায় বাংলাদেশ তাদের আশ্রয় দেয়ার সাথে সাথেই মারাত্নক এক স্বাস্থ্যঝুকি বরণ করে নিয়েছে ।


সমতল ভূমি এবং ইমিউনাইজেশন পলিসি খুব শক্ত হওয়ায় বাংলাদেশে ভ্যাক্সিন প্রতিরোধযোগ্য রোগের প্রকোপ কম। আমরা পোলিওমুক্ত হয়েছি ২০১৪ সালে। কিন্তু মায়ানমারে অবস্থা এমন নয়।


পোলিওসহ, ডিপথেরিয়া, হেপাটাইটিস, মিজেলস, মামপস, হুপিং কফ ইত্যাদি রোগের ক্ষেত্রে ভ্যাকসিন কভারেজ রোহিঙ্গা অধ্যুষিত অঞ্চলে ৭০-৮০%। সুতরাং অনুপ্রবেশকারীদের অনেকেই এই রোগ নিয়ে আসছেন। তারা যদি নির্দিষ্ট ক্যাম্পে থাকেন তাতে ঝুকি কিছুটা কমে। তবে যারা লোকালয়ে ছড়িয়ে পড়ছেন তাদের মাধ্যমে রোগ ছড়ানোর ঝুঁকি অনেক। 


তাই সীমান্ত উপকূলবর্তী যে সকল এলাকায় রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঘটেছে এবং আরো যে সকল এলাকায় এই অনুপ্রবেশের সম্ভাবনা রয়েছে সে সকল অঞ্চলে  খুব দ্রুত সতর্ক ব্যবস্থা নিতে হবে স্বাস্থ্য বিভাগকে।


 


বিশেষ করে শিশুদের অনেক সংক্রামক রোগ যা আমরা ইতিমধ্যেই নির্মূল করেছি বা নির্মূল করার দ্বারপ্রান্তে  পৌঁছে গেছি। এই অনুপ্রবেশের কারনে সেখানে  সকল রোগের প্রাদুর্ভাব বা পুনঃসংক্রমণ এর সম্ভাবনা তৈরী হতে পারে।


ধরনের অনাকাঙ্খিত কোন পরিস্থিতি যেন সৃষ্টি না হয় সেজন্য স্বাস্থ্য বিভাগ অগ্রীম সতর্ক অবস্থান নিতে হবে


টেকনাফ, উখিয়া, নাইক্ষ্যংছড়ি সহ দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের অন্যান্য সীমান্তবর্তী এলাকায় বিশেষ টিম গঠন করে মাঠ পর্যায়ের স্বাস্থ্যকর্মীদের মাধ্যমে ইমিউনাজেশন কার্যক্রম শুরু করতে হবে। অনুপ্রবেশকারী নিবন্ধিত ও অনিবন্ধিত রোহিংগা  শিশুদের সনাক্তকরণ কার্যক্রম শুরু করে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। এইসব শিশুদেরকে ২ টি ভ্যাক্সিন (যথাঃ ১। ওপিভি – ওরাল পোলিও ভ্যাক্সিনঃ ২ ফোঁটা এবং ২। এমআর ভ্যাক্সিন – হাম ও রুবেলা ভ্যাক্সিন) এবং এর সাথে ভিটামিন এ ক্যাপসুল (১ বছর বয়স পর্যন্ত শিশুদের জন্য – ১ লক্ষ ইউনিটের নীল ক্যাপসুল এবং ১ থেকে ৫ বছর বয়স পর্যন্ত ২ লক্ষ ইউনিট এর লাল ক্যাপসুল) খুব দ্রুত দেয়ার পদক্ষেপ নিতে হবে।

More News

Warning: file_get_contents(http://www.sandwipnews24.com/temp/.php): failed to open stream: HTTP request failed! HTTP/1.1 404 Not Found in /home/sandwipnews/public_html/m/news_details.php on line 77

Warning: Invalid argument supplied for foreach() in /home/sandwipnews/public_html/m/news_details.php on line 79