খুনীদের জন্য এত মায়া কান্না কেন

খুনীদের জন্য এত মায়া কান্না কেন

জেলহত্যা দিবসের আলোচনায় প্রধানমন্ত্রীর জিজ্ঞাসা ; ১৫ আগস্ট ও ৩ নবেম্বর হত্যাকান্ডের নেপথ্যের ষড়যন্ত্রকারীরাও একদিন ধরা পড়বে, রহস্যও উদ্ঘাটিত হবে


জনকণ্ঠ :: প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা কারাবন্দী খালেদা জিয়ার নাম উল্লেখ না করে বলেছেন, খুনীদের নিয়ে এত মায়াকান্না কেন? জেনারেল জিয়া একজন খুনী। তার স্ত্রী (খালেদা জিয়া) ও ছেলেও (তারেক রহমান) তাই। তারা (খালেদা জিয়া) শত শত মানুষকে হত্যা করেছে, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালিয়েছে, বিরোধী দলে থাকতেও অগ্নিসন্ত্রাস চালিয়ে শত শত মানুষকে বীভৎস কায়দায় হত্যা করেছে, এতিমের টাকা আত্মসাত করার দায়ে দন্ডিত হয়ে যিনি এখন কারাগারে, তাদের নিয়ে এত মায়াকান্না কেন? চিকিৎসা নিয়ে এত কথা কেন?


ভবিষ্যতে ১৫ আগস্ট এবং ৩ নবেম্বরের জেল হত্যাকান্ডের নেপথ্যের ষড়যন্ত্রকারী ও মদদদাতাদেরও বিচার হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ রহস্য উদঘাটন হবে এবং ষড়যন্ত্রকারীরাও ধরা পড়বে। বঙ্গবন্ধুর খুনী, ৩ নবেম্বর জেলহত্যাকান্ড এবং যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এবং বিচারের রায় আমরা কার্যকর করেছি। এদের যারা দোসর বা ষড়যন্ত্রকারী, হয়তো আমরা আজকে করে যেতে পারলাম না, আমরা করার চেষ্টা করব বা আগামী যারা আসবে তারা করবে। কারণ ইতিহাস কোনদিন মুছে ফেলা যায় না। তখন এই ষড়যন্ত্রকারীরাও এক সময় ধরা পড়বে। তাদের সে রহস্য উদঘাটন অবশ্যই হবে। কেউ না কেউ এটা করবে, এটা আসবে, এটা হবেই। কেউ না কেউ এসে এদের বিচার করবে, কারণ ইতিহাস কাউকে কোনদিন ক্ষমা করে না।


রবিবার রাজধানীর খামারবাড়িতে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী বিএনপির বর্তমান নেতৃত্বের কড়া সমালোচনা করে আরও বলেন, একটি দলের (বিএনপি) নেত্রী যিনি এতিমের টাকা আত্মসাত করে দন্ডিত হয়ে কারাগারে রয়েছেন। বিএনপিতে কোন নেতা পেল না, যাকে (তারেক রহমান) ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সন করা হলো সেও দুর্নীতির মামলায় দন্ডিত পলাতক আসামি! বিএনপি একজন ভাল লোককে পেল না দলের দায়িত্ব দিতে। তাই যারা এখন বিএনপি করেন, এত মায়াকান্না করেন- আসলে তাদের মেরুদন্ড ও আত্মসম্মানবোধ আছে কিনা সন্দেহ হয়।


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন দলটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, সভাপতিম-লীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম, এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, এ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু, সাবেক মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, কথাসাহিত্যিক-সাংবাদিক আনিসুল হক, দলের সাংগঠনিক সম্পাদক উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হক চৌধুরী নওফেল, কেন্দ্রীয় সদস্য আনোয়ার হোসেন, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম রহমতুল্লাহ এমপি ও দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ। কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ও উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিনের পরিচালনায় আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন দলের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আলোচনার সভার শুরুতেই ১৫ আগস্ট ও ৩ নবেম্বর হত্যাকা-ের শিকার চার জাতীয় নেতার স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।


সভাপতির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী সারাদেশে চলমান সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়ে বলেন, আমরা অন্যায়কে প্রশ্রয় দেইনি, দেব না। দেশের মানুষ যেন সুন্দর ও উন্নত জীবন পায় সেজন্য কাজ করে যাচ্ছি। যারা যে স্বপ্ন নিয়ে এদেশকে স্বাধীন করেছেন, তাদের স্বপ্ন কখনও ব্যর্থ হতে পারে না। ভবিষ্যতেও হবে না। বঙ্গবন্ধুর খুনীদের দোসর ও মদদদাতাদের বাংলার মাটিতে স্থান হবে না। আর যেন খুনীদের দোসররা কোনদিন ক্ষমতায় আসতে না পারে, দেশের উন্নয়ন ও গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকে, সেভাবেই দেশের মানুষকে চিন্তা করতে হবে, সজাগ ও সতর্ক থাকতে হবে।


বিএনপি-জামায়াত জোটের ক্ষমতার পাঁচ বছরের দুঃশাসন এবং পরবর্তীতে অগ্নিসন্ত্রাসের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৭১ সালে পাক হানাদার বাহিনী যেভাবে আমাদের দেশের মানুষকে হত্যা-নির্যাতন চালিয়েছে, ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসে খালেদা জিয়ারা একইভাবে দেশের মানুষকে হত্যা ও নির্যাতন করেছে। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা করেছে, সারাদেশে একইসঙ্গে ৬৩ জেলার ৫শ’টি স্থানে বোমা হামলা করেছে। নৌকায় ভোট দেয়ার অপরাধে ৬ বছরের শিশুসহ অসংখ্য নারীকে গণধর্ষণ করেছে। ক্ষমতায় থাকতে এমন কোন অপকর্ম নেই যা তারা করেনি।


প্রধানমন্ত্রী বলেন, চিহ্নিত রাজাকার, আলবদর প্রধানদের মন্ত্রী বানিয়ে তাদের গাড়িতে লাখো শহীদের রক্তস্নাত জাতীয় পতাকা তুলে দিয়েছিলেন এই খালেদা জিয়া। ক্ষমতায় এসে খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর খুনী পদচ্যুত খায়রুজ্জামানকে এনে পদোন্নতি দিয়ে ফরেন সার্ভিসে চাকরি দিয়েছিলেন। বিদেশে থাকা অবস্থায় মৃত খুনী পাশাকেও পদোন্নতি দিয়ে তার অবসরের সব সুযোগ-সুবিধাও দিয়েছিলেন তিনি। এ ধরনের জঘন্য অন্যায়-অবিচারও তিনি করে গেছেন।


তিনি বলেন, ক্ষমতা থেকে চলে যাওয়ার পরও তারা (বিএনপি-জামায়াত) থেমে থাকেনি। অসহযোগ আন্দোলনের নামে গুলশানের অফিসে বসে থেকে নির্দেশ দিয়ে সারাদেশে অগ্নিসন্ত্রাস চালিয়েছেন খালেদা জিয়া। জীবন্ত মানুষকে পেট্রোল ঢেলে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। বাস, ট্রাক, ট্রেন, লঞ্চসহ সর্বত্রই নাশকতা চালিয়েছে। খালেদা জিয়ার ডাকা সেই অসহযোগ, হরতাল ও অবরোধ এখনও কিন্তু বহাল রয়েছে। তাদের এত অন্যায়, জীবন্ত শত শত মানুষকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনা আল্লাহও সহ্য করেননি।


এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, দেশের কিছু মানুষ আছে তারা সহজেই অতীতের ঘটনা অল্প সময়েই ভুলে যান। এখন অনেকে কারাবন্দী দন্ডিত একজনকে নিয়ে মায়াকান্না করেন। কিন্তু তাদের কী ৭৫ পরবর্তী হত্যাকান্ডের শিকার পরিবার, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে হাজার হাজার আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীকে হত্যার পর তাদের পরিবার, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত ও পঙ্গুত্ব নিয়ে বেঁচে থাকা এবং অগ্নিসন্ত্রাসে বীভৎস কায়দায় হত্যার শিকার পরিবারের আর্তনাদের কথা কী চোখে পড়ে না? যারা এসব ঘটিয়েছেন, এতিমের টাকা পর্যন্ত আত্মসাত করেছেন, তাদের নিয়ে এত মায়াকান্না ও চিকিৎসা নিয়ে এত কথা কেন বুঝি না।


আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনের আগে বিএনপি-জামায়াতের জারি-জুরি জেনে গেছে। ওই নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত মাত্র ২৯টি সিট পেয়েছিল। বিএনপি নেত্রীর নামে আরও অনেক দুর্নীতির মামলা রয়েছে। তিনি আদালতে যান না। কারণ উনি (খালেদা জিয়া) ভাল করেই জানেন আদালতে গেলে তার দুর্নীতির প্রমাণ হয়ে যাবে। কারণ তাদের দুর্নীতি আমরা নয়, খোদ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এফবিআই খুঁজে বের করেছে, তার পুত্রের পাচারকৃত কিছু অর্থ আমরা ফেরতও এনেছি।


খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে বিএনপি নেতাসহ কিছু মানুষের বক্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী উদাহরণ তুলে ধরে বলেন, খালেদা জিয়া সেনা প্রধানের স্ত্রী হিসেবে অনেক সুযোগ-সুবিধা নিয়েছেন। মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমানও সেনাপ্রধান ছিলেন। কিন্তু ক্ষমতায় এসে খালেদা জিয়া তাকে সিএমএইচএ চিকিৎসা পর্যন্ত নিতে দেননি। আমরা যে পদোন্নতি দিয়েছিলাম, সেটিও কেড়ে নিয়েছিলেন। ক্যান্সারে আক্রান্ত সাবেক এই সেনাপ্রধানকে স্ট্রেচারে করে আদালতে হাজিরা দিতে হয়েছে। একজন সেনাপ্রধানের স্ত্রী হলেও আরেক সেনাপ্রধানকে চিকিৎসাও নিতে দেননি। এখন তার চিকিৎসা নিয়ে এত কথা কেন? কোন মুখে তারা কথা বলেন?


প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির কথা তুলে ধরে বলেন, দেশ আজ সবদিক থেকে এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বের অনেকেই আমাকে প্রশ্ন করেন, এত দ্রুত দেশের উন্নয়ন কীভাবে সম্ভব? জবাবে আমরা একটাই বক্তব্যে, যদি আন্তরিকতা থাকে, দেশ ও জনগণের প্রতি দরদ থাকে, কর্তব্যবোধ থাকে- তবেই অসাধ্যকে সাধন করা যায়। বাংলাদেশ সারাবিশ্বের সামনে এখন উন্নয়নের বিস্ময়। সেই মর্যাদা বাংলাদেশ পেয়েছে। এই মর্যাদা আমাদের ধরে রেখে দেশকে আরও এগিয়ে নিতে হবে।


বিএনপিকে উদ্দেশে করে শেখ হাসিনা বলেন, ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে যারা দল গঠন করে, সেই সামরিক স্বৈরাচারের হাতে গড়া দল ক্ষমতায় গেলে শুধু নিজেদের ভাগ্য গড়েছে, নিজেরা বিলাস-ব্যসনে মত্ত থেকেছে, দেশ ও জনগণের কোন উন্নতি তারা করেনি। এরা ক্ষমতায় থেকে নিজেদের আখের গুছিয়েছে, আর দেশের মানুষকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলেছে। ঋণখেলাপী, নির্বাচনের নামে প্রহসনসহ যত অপকর্ম তা খুনী জিয়াসহ অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারী সামরিক স্বৈরশাসকরা করে গেছে। অবৈধ ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করে রাখতে তারা একটি এলিট শ্রেণী তৈরি করেছিল।


বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের সঙ্গে জিয়াউর রহমান জড়িত উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের সঙ্গে বেইমান-মোনাফেক খুনী মোশতাকের সঙ্গে জিয়াও অতপ্রোতভাবে জড়িত। বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত ছিল বলেই খুনী মোশতাক জিয়াকে সেনাপ্রধান বানিয়েছিল। মোশতাকের পতনের পর জেনারেল জিয়া একাধারে সামরিক শাসক এবং রাষ্ট্রপতি বিচারপতি সায়েমকে হঠিয়ে অবৈধভাবে নিজেকে রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করেন। এই জিয়াই ক্ষমতায় এসে সংসদে ইনডেমনিটিকে আইনে পরিণত করেছিল।


শহীদ জাতীয় চার নেতার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কারাগার হচ্ছে একটি সুরক্ষিত জায়গায়। সেই কারাগারে বন্দীদের হত্যা করার মতো জঘন্য ঘটনা পৃথিবীর ইতিহাসে নেই। খুনী খন্দকার মোশতাকের নির্দেশে জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় কারাগারে অস্ত্র নিয়ে ঢোকা যায় না। কিন্তু, তারা অস্ত্র নিয়ে ঢুকেছিল। প্রথমে জেল কর্তৃপক্ষ বাধা দেয়। তখন বঙ্গভবন থেকে বলা হয়েছিল, আলোচনা করতে যাচ্ছে। যেভাবে ঢুকতে চায়, সেভাবেই ঢুকতে দেয়া হোক।


প্রধানমন্ত্রী বলেন, খুনী মোশতাকের পতন যখনই অনিবার্য হয়ে পড়ল, সঙ্গে সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর খুনীদের একটি প্লেনে করে বিদেশে পাঠিয়ে দেয়া হলো। প্রথমে খুনীদের ব্যাঙ্ককে নিয়ে যায়। সেখানে বসে তাদের পাসপোর্ট দেয়া হয়। তাদের ভিসার ব্যবস্থা করে কোন দেশে যাবে সেটাও ঠিক করে দেয়া হয়। এর সঙ্গে কারা জড়িত, সেটাও কিন্তু ইতিহাসে আছে। একদিন তাদেরও বিচার হবে।

More News

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আবুধাবির যুবরাজের সৌজন্য সাক্ষাত,  আমিরাতের শ্রমবাজার খুলে দেয়ার ইঙ্গিত প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আবুধাবির যুবরাজের সৌজন্য সাক্ষাত, আমিরাতের শ্রমবাজার খুলে দেয়ার ইঙ্গিত

পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাত বাংলাদেশী শ্রমিকদের জন্য সেখানকার শ্রমবাজার পুনরায় খুলে দেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন। দুবাই ওয়ার্ল্ড সেন্টারে দুবাই এয়ার শো ২০১৯-এর ফাঁকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আবুধাবির যুবরা........ বিস্তারিত

ক্ষুদ্র ঋণের কাঙ্ক্ষিত সুফল মানুষ পায়নি : প্রধানমন্ত্রী ক্ষুদ্র ঋণের কাঙ্ক্ষিত সুফল মানুষ পায়নি : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দারিদ্র্য বিমোচনের ক্ষেত্রে ক্ষুদ্র ঋণের ব্যর্থতার কথা তুলে ধরে বলেছেন, কেউ কেউ এর প্রবক্তা হিসেবে নাম-যশ কামালেও বাস্তবতা হচ্ছে যে দেশের জনগণ এর অতটা সুফল পায়নি।


তিনি বলেন, ‘এক সময় আমরা দেখেছি ক্ষুদ্র ঋণ নি........ বিস্তারিত

সব অপরাধীদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে : সংসদে প্রধানমন্ত্রী সব অপরাধীদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে : সংসদে প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দুর্নীতিসহ সব ধরনের অপরাধীদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে।


তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার দেশে আইনের শাসন নিশ্চিত করে উন্ননের ধারাবাহিকতা অক্ষুন্ন রাখার লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। দø........ বিস্তারিত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তূর্ণা -ঊদয়ন সংঘর্ষ, নিহত ১৫ আহত শতাধিক ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তূর্ণা -ঊদয়ন সংঘর্ষ, নিহত ১৫ আহত শতাধিক


ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কবসায় দুই ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৫ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এই সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আহত হয়েছেন শতাধিক যাত্রী। ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন কর&#........ বিস্তারিত

দূর্বল হয়ে পড়ছে 'বুলবুল', বন্দরসমূহে ৩ নং সতর্ক সংকেত দূর্বল হয়ে পড়ছে 'বুলবুল', বন্দরসমূহে ৩ নং সতর্ক সংকেত

বাংলাদেশের উপকূলে প্রবাহিত হওয়া ঘুর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ বাগেরহাট, বরিশাল ও পটুয়াখালী অঞ্চলে অবস্থান করে স্থল নিন্মচাপে পরিনত হয়েছে।  এটি আরও সামান ̈ পূর্ব-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে আজ বিকাল ৩:০০ টায় বরিশাল, পটুয়াখালী, ভোলা অঞ্চলে ........ বিস্তারিত

খুনীদের জন্য এত মায়া কান্না কেন খুনীদের জন্য এত মায়া কান্না কেন

জেলহত্যা দিবসের আলোচনায় প্রধানমন্ত্রীর জিজ্ঞাসা ; ১৫ আগস্ট ও ৩ নবেম্বর হত্যাকান্ডের নেপথ্যের ষড়যন্ত্রকারীরাও একদিন ধরা পড়বে, রহস্যও উদ্ঘাটিত হবে


জনকণ্ঠ :: প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা কারাবন্দী খালেদা জিয়ার না........ বিস্তারিত

জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা শুরু জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা শুরু

কোন ধরনের অভিযোগ ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে অষ্টম শ্রেণীর জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা। শনিবার পরীক্ষার প্রথম দিনে ছিল না প্রশ্নপত্র ফাঁস, কিংবা ভুল প্রশ্ন বিতরণসহ বড় ধর&........ বিস্তারিত

অপরাধ করে কেউ পার পাবে না, ধরা হবে সবাইকে - প্রধানমন্ত্রী অপরাধ করে কেউ পার পাবে না, ধরা হবে সবাইকে - প্রধানমন্ত্রী

জনকণ্ঠ :: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চলমান দুর্নীতিবিরোধী অভিযানকে ‘আইওয়াশ’ বলে বিএনপির অভিযোগ সরাসরি নাকচ করে দিয়ে তাদের উদ্দেশে পাল্টা প্রশ্ন ছুড়ে দিয়ে বলেছেন, যারা (বিএনপি) আপাদমস্তক দুর্নীতিবাজ, যাদের বিরুদ্ধে খুন-দুর্নীতি-অগ্নিস&#........ বিস্তারিত

ন্যাম সম্মেলনে যোগদান শেষে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী ন্যাম সম্মেলনে যোগদান শেষে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৮তম জোট নিরপেক্ষ আন্দোলনের (ন্যাম) সম্মেলনে যোগ দিতে আজারবাইজানে চার দিনের সরকারী সফর শেষে রবিবার সন্ধ্যায় দেশে ফিরেছেন।


প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ........ বিস্তারিত

ন্যাম সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ন্যাম সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

উন্নয়নশীল দেশগুলোর জোট নিরপেক্ষ আন্দোলন-ন্যামের অষ্টাদশ শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


শুক্রবার সকালে আজারবাইজানের বাকু কংগ্রেস সেন্টারে আনুষ্ঠানিকভাবে এ সম্মেলনের উদ্বোধন হয়।


১২০টি উ÷........ বিস্তারিত

আরও ১টি সিটি কর্পোরেশন, ১টি পৌরসভা ও ৭টি থানার অনুমোদন আরও ১টি সিটি কর্পোরেশন, ১টি পৌরসভা ও ৭টি থানার অনুমোদন

প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি (নিকার) সভায় শর্ত সাপেক্ষে ফরিদপুর সিটি কর্পোরেশন (এফসিসি), সাতটি নতুন পুলিশ থানা এবং একটি পৌরসভা গঠনের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আজ ২১ অক্টো........ বিস্তারিত

সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থায় বাংলাদেশের অর্থনীতি সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থায় বাংলাদেশের অর্থনীতি

বাংলাদেশের অর্থনীতির সবচেয়ে সুন্দর সময় অতিক্রম করছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেছেন,বৈশ্বিক অর্থনৈতিক অবস্থার প্রেক্ষাপটে এখন সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ।


শুক্রবার ঢাকায় প্রাপ্ত এক সংব&........ বিস্তারিত

র্যা গিংয়ের শিকার হলে নালিশ করুন, বিচার হবে : আইনমন্ত্রী র্যা গিংয়ের শিকার হলে নালিশ করুন, বিচার হবে : আইনমন্ত্রী

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে র‌্যাগিংয়ের নামে নির্যাতন শিকার হয়ে কেউ নালিশ জানালে প্রচলিত আইনেই তার বিচারের আশ্বাস দিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।


বুয়েটছাত্র আবরার ফাহাদকে নির্যাতন চালিয়ে হত্যার প্রেক্ষাপটে বুধবার সচিবালয়ে ইউরো÷........ বিস্তারিত

আরও দু'টি মেট্রোরেল রাজধানীতে আরও দু'টি মেট্রোরেল রাজধানীতে

রাজধানীতে যানজট নিরসনসহ গতিশীলতা বাড়াতে আরও দুটি মেট্রোরেল হচ্ছে। মঙ্গলবার ৯৩ হাজার ৮০০ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি অনুমোদন করেছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক)।


ক্ষমতা ভোগ করার জন্য নয়, মানুষের সেবা করার ব্রত নিয়েই কাজ করে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
তিনি বলেন, ক্ষমতা ভোগ করার জন্য নয়, মানুষের সেবা করার ব্রত নিয়েই কাজ করে যাচ্ছ........ বিস্তারিত

কাল রাজশাহী যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী কাল রাজশাহী যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রবিবার রাজশাহী যাচ্ছেন। এদিন তিনি রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার সারদায় বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে সহকারী পুলিশ সুপারদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে অভিবাদন গ্রহণ এবং প্যারেড পরিদর্শন করবেন। পুলিশ এক........ বিস্তারিত

এসএমই খাতে ঋণ ও অন্যান্য সুবিধা বাড়ছে এসএমই খাতে ঋণ ও অন্যান্য সুবিধা বাড়ছে

জনকণ্ঠ :: ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) খাতের উদ্যোক্তাদের সুবিধা বাড়াতে একটি নীতিমালা অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। এতে এসএমই খাতের উদ্যোক্তাদের ঋণ ও অন্যান্য সুবিধা বৃদ্ধি পাবে। এছাড়া সভায় ‘বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্পোরেশন ........ বিস্তারিত

আমরা কৃষিকেও গুরুত্ব দেই, আবার শিল্পকেও গুরুত্ব দেই - শেখ হাসিনা আমরা কৃষিকেও গুরুত্ব দেই, আবার শিল্পকেও গুরুত্ব দেই - শেখ হাসিনা

বিজিএমইএ পরিচালনা পর্ষদের নবনির্বাচিত সদস্যদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের কিছু লোক আছে অনবরত আমাদের বিরুদ্ধে প্রপাগান্ডা চালায়। এটা আপনাদের অ্যাড্রেস করতে হবে। যার জন্য ক্ষতিগ্রস্ত আপনারা হন।


আজ বুধবার প্........ বিস্তারিত

বেপরোয়া রোহিঙ্গারা, প্রশাসনিক এ্যাকশন শুরু বেপরোয়া রোহিঙ্গারা, প্রশাসনিক এ্যাকশন শুরু

জনকণ্ঠ :: মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফ অঞ্চলের জন্য মারাত্মক হুমকি হয়ে আছে। দীর্ঘ দুই বছর সময়ে ওরা হয়ে উঠেছে বেপরোয়া। রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের অপতৎপরতা ও কিছু এনজিওর ইন্ধনে এ রোহিঙ্গারা এখন সবকিছুতে ফ্র&#........ বিস্তারিত

স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের উদ্বৃত্ত অর্থ সরকারী কোষাগারে জমা দিতে হবে স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের উদ্বৃত্ত অর্থ সরকারী কোষাগারে জমা দিতে হবে

স্বায়ত্তশাসিত, আধা-স্বায়ত্তশাসিত, সংবিধিবদ্ধ সরকারি কর্তৃপক্ষ, পাবলিক নন-ফাইন্যান্সিয়াল কর্পোরেশনসহ ৬৮টি সরকারি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন ব্যাংকে স্থায়ী আমানতের পরিমাণ ২ লাখ ১২ হাজার ১০০ কোটি টাকা। এ প্র........ বিস্তারিত

'বাকশাল হলে বাংলাদেশ আগেই বিশ্ব দরবারে মর্যাদার আসনে থাকতো' - প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা 'বাকশাল হলে বাংলাদেশ আগেই বিশ্ব দরবারে মর্যাদার আসনে থাকতো' - প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বঙ্গবন্ধুর বাকশাল কার্যকর করা গেলে বাংলাদেশ অনেক আগেই বিশ্ব দরবারে মর্যাদার আসনে থাকতো বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।


শনিবার গণভবনে শোকের মাস আগস্টের শেষ দিনে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্য........ বিস্তারিত

অপকর্মে লিপ্ত থাকায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ৪১ এনজিও প্রত্যাহার অপকর্মে লিপ্ত থাকায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ৪১ এনজিও প্রত্যাহার

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, রোহিঙ্গা সমস্যা সৃষ্টির পর ১৩৯টি এনজিও রোহিঙ্গা ক্যাম্পে তাদের কার্যক্রম শুরু করেছিল। এদের মধ্যে অপকর্মে লিপ্ত থাকায় তালিকা করে ৪১টি এনজিওকে ওই এলাকার সব ধরনের কার্যক্রম থেকে প্রত্যাহা........ বিস্তারিত

জটিল হয়ে উঠছে রোহিঙ্গা সমস্যা জটিল হয়ে উঠছে রোহিঙ্গা সমস্যা

স্বদেশ রায় :: রোহিঙ্গা ঢল যখন নামে, তখন নানান লেখায় নানাভাবেই লিখি—রোহিঙ্গা সমস্যা সহজে ও শিগগিরই সমাধান হবে না। তবে বাংলাদেশের রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার কোনও বিকল্প ছিল না। কারণ, বাংলাদেশ যদি তাদের ঢুকতে না দিতো, তাহলে বাংলাদেশও মানবাধ........ বিস্তারিত

দেশের প্রতিটি গ্রামকে পরিকল্পিতভাবে সাজাতে হবে - প্রধানমন্ত্রী দেশের প্রতিটি গ্রামকে পরিকল্পিতভাবে সাজাতে হবে - প্রধানমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়তে জীববৈচিত্র্য রক্ষা ও নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করে প্রতিটি গ্রামকে পরিকল্পিতভাবে সাজানোর নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


বুধবার সকালে প্রধানমন্ত্রী তার কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠা÷........ বিস্তারিত

৫ হাজার ৪৯৪ কোটি টাকার ১২টি প্রকল্প একনেকে অনুমোদন ৫ হাজার ৪৯৪ কোটি টাকার ১২টি প্রকল্প একনেকে অনুমোদন

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রায় ৫ হাজার ৪৯৪ কোটি ৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ১২টি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে সরকার দেবে ৫ হাজার ৪২৬ কোটি ৪ লাখ এবং বিদেশি অনুদান ৭৮ কোটি টাকা।


আজ মঙ্গলবার শেরেবাংলা নগরে জাতীয় অ&#........ বিস্তারিত

বিমান দুর্ঘটনায় মারা গেলে ক্ষতিপূরণ দেড় কোটি টাকা বিমান দুর্ঘটনায় মারা গেলে ক্ষতিপূরণ দেড় কোটি টাকা

বিমান যাত্রীদের ক্ষতিপূরণের পরিমাণ বাড়িয়ে ‘আকাশ পথে পরিবহন (মন্ট্রিল কনভেনশন, ১৯৯৯) আইন, ২০১৯’ এর খসড়া নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।


খসড়া আইন অনুযায়ী বিমান দুর্ঘটনায় কেউ মারা গেলে তার পরিবারকে এক কোটি ৪০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে........ বিস্তারিত

আইভি রহমানের মৃত্যুবার্ষিকীর মিলাদ মাহফিলে অংশ নিলেন প্রধানমন্ত্রী আইভি রহমানের মৃত্যুবার্ষিকীর মিলাদ মাহফিলে অংশ নিলেন প্রধানমন্ত্রী

২০০৪ সালের একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত আওয়ামী লীগ নেতা আইভি রহমানের মৃত্যুবার্ষিকীতে তার স্বজনদের কাছে গিয়ে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে অংশ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


শনিবার আসরের নামাজের পর গুলশানে আইভি কনকর্ডে এ মিলাদ ও দো........ বিস্তারিত

বেপরোয়া রোহিঙ্গারা, পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ২ বেপরোয়া রোহিঙ্গারা, পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ২

জনকণ্ঠ :: রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন দু’দফায় থমকে যাওযায় উখিয়া-টেকনাফের স্থানীয়রা চরম ক্ষুব্ধ। অন্যদিকে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের মাঝে সৃষ্টি হয়েছে উল্লাস। মিয়ানমারের মৃত্যুকূপ থেকে পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় পেয়ে এসব রোহিঙ্গা এখন ফ্রি স্টাই........ বিস্তারিত

২ বছরে রোহিঙ্গাদের জন্য বাংলাদেশের ব্যয় ৭২ হাজার কোটি টাকা! ২ বছরে রোহিঙ্গাদের জন্য বাংলাদেশের ব্যয় ৭২ হাজার কোটি টাকা!

বাংলা ট্রিবিউন :: জাতিগত নিধনের শিকার হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া মিয়ানমারের বস্তুচ্যুত নাগরিকের সংখ্যা এখন ১১ লাখের বেশি। বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন জানিয়েছেন, এই বিপুল রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর জন্য গত দুই বছরে বাংলাদেশ ........ বিস্তারিত

আবারও ভেস্তে গেল রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া আবারও ভেস্তে গেল রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া

জনকণ্ঠ :: দ্বিতীয় দফায়ও রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন কাজ শুরু করা গেল না। বিভিন্ন মহলের উৎস্যুক দৃষ্টি ছিল। সরকারের ছিল সব প্রস্তুতি। প্রত্যাবাসন কাজে নিয়োজিত সব সংস্থার কর্মকর্তা কর্মচারীদের ছিল দীর্ঘ অপেক্ষা। চলছিল ক্ষণ গণনা। মিয়ানমার প........ বিস্তারিত

গ্রেনেড হামলায় খালেদার মদদ ছিল,মৃত্যু ভয়ে আমি কখনই ভীত ছিলাম না, এখনও নই গ্রেনেড হামলায় খালেদার মদদ ছিল,মৃত্যু ভয়ে আমি কখনই ভীত ছিলাম না, এখনও নই

জনকণ্ঠ :: প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ভয়াল ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার জন্য তৎকালীন ক্ষমতাসীন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারকে আবারও দায়ী করে বলেছেন, প্রকাশ্য দিবালোকে তৎকালীন ক্ষমতাসীন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের প্রত্যক্ষ ম&#........ বিস্তারিত

নারকীয় গ্রেনেড হামলার ১৫তম বার্ষিকী আজ, আওয়ামীলীগকে নেতৃত্বশূন্য করতেই এ হামলা নারকীয় গ্রেনেড হামলার ১৫তম বার্ষিকী আজ, আওয়ামীলীগকে নেতৃত্বশূন্য করতেই এ হামলা

জনকণ্ঠ :: মূলত প্রধান রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করতেই ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। আর এ হামলার পরিকল্পনা এবং বাস্তবায়নের পেছনে ছিলেন তৎকালীন ক্ষমতাসীন বিএনপি-জামায়াত জোটের প্রভাবশালী রাজনীতিবিদ, দেশের এক........ বিস্তারিত

২২ আগস্ট থেকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু ২২ আগস্ট থেকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু

মিয়ানমারের সদিচ্ছায় আগামী ২২ আগস্ট থেকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হতে যাচ্ছে। এদিন ৩ হাজার ৪৫০ জন রোহিঙ্গাকে ফিরিয়ে নিতে স্থল ও নৌ পথে মিয়ানমার সরকার প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে বলে জানা গেছে। গত জুলাই মাসে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত&........ বিস্তারিত

জাতিসংঘ সদর দপ্তরে প্রথমবারের মতো পালিত হলো জাতীয় শোক দিবস জাতিসংঘ সদর দপ্তরে প্রথমবারের মতো পালিত হলো জাতীয় শোক দিবস

প্রথমবারের মতো জাতিসংঘ সদর দপ্তরে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে পালিত হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস। জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনের উদ্যোগে এই আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশ নেন কয়েকটি........ বিস্তারিত

ডেঙ্গুর কার্যকর ওষুধ ছিটাতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও দুই মেয়রকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ , নাগরিকদেরকে তাদের বাড়িঘর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি ডেঙ্গুর কার্যকর ওষুধ ছিটাতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও দুই মেয়রকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ , নাগরিকদেরকে তাদের বাড়িঘর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু জ্বর মোকাবেলায় কার্যকর ওষুধ ছিটাতে ঢাকার দুই সিটি মেয়র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে নির্দেশ দিয়েছেন। জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, প্রবল বন্যা ও........ বিস্তারিত

টানা বৃষ্টির সম্ভাবনা, সমুদ্রবন্দরসমূহে ৩ নং সতর্ক সংকেত টানা বৃষ্টির সম্ভাবনা, সমুদ্রবন্দরসমূহে ৩ নং সতর্ক সংকেত

মৌসুমী বায়ু সক্রিয় থাকায় রাজধানীসহ প্রায় সারাদেশে বৃষ্টিপাত হচ্ছে এবং আগামী তিনদিন তা অব্যাহত থাকতে পারে। এদিকে দক্ষিণপশ্চিম বঙ্গোপসাগর এবং তৎসংলগ্ন এলাকায় লঘুচাপ সৃষ্টি হওয়ায় দেশের চার সমুদ্রবন্দরে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকে........ বিস্তারিত

প্রধানমন্ত্রীর চোখে অস্ত্রোপচার প্রধানমন্ত্রীর চোখে অস্ত্রোপচার

লন্ডনের একটি হাসপাতালে চোখের অপারেশন করিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বর্তমানে যুক্তরাজ্যে সরকারি সফরে রয়েছেন তিনি। খবর বাসস’র।


প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম মঙ্গলবার লন্ডন থেকে টেলিফোনে বাসসকে জানান, সোমবার দুপু&#........ বিস্তারিত

ছেলেধরা সন্দেহে ১৮ জনকে গণপিটুনি, সারাদেশে আতঙ্ক ছেলেধরা সন্দেহে ১৮ জনকে গণপিটুনি, সারাদেশে আতঙ্ক

জনকণ্ঠ :: ছেলেধরা’ সন্দেহে ‘গণপিটুনি’র ঘটনা সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ছে। একই সঙ্গে বিরাজ করছে আশঙ্কা। এই বাতিক থেকে রেহাই পেতে সংবাদ সম্মেলন করে এক পুলিশ কর্মকর্তা জনগণকে গুজবে কান না দিয়ে সচেতন হতে আহ্বান জানিয়েছেন। এই সন্দেহ বাতিকের অসহায় শ........ বিস্তারিত